সোমবার ২৬ জুলাই ২০২১ || শ্রাবণ ১১ ১৪২৮ || ১৬ জিলহজ্জ ১৪৪২

Logo
Logo

চোর-পুলিশ খেলে যাত্রী-গাড়ি যাচ্ছে আমিনবাজারে

নিজস্ব প্রতিবেদক

আপডেট: 4:29 PM, মঙ্গলবার, ১৩ এপ্রিল, ২০২১

চোর-পুলিশ খেলে যাত্রী-গাড়ি যাচ্ছে আমিনবাজারে

চোর-পুলিশ খেলায় মেতেছেন মাইক্রোবাস, প্রাইভেটকার ও মোটরসাইকেল চালক ও যাত্রীরা। পুলিশের বাধা ও মামলার ভয়ে যাত্রী ও চালকরা কৌশলে চলে যাচ্ছেন আমিবাজার। আর সেখান থেকেই যাত্রী নিয়ে মাইক্রোবাস, প্রাইভেটকার ও সিএনজিগুলো ছুটছে গন্তব্যে।

করোনাভাইরাসের সংক্রমণ রোধে দেশে বুধবার (১৪ এপ্রিল) থেকে চলবে কঠোর বিধিনিষেধ। তাই গত কয়েকদিন ধরেই রাজধানীর ছেড়ে চলে যাচ্ছেন কর্মজীবীরা। বিধিনিষেধে দূরপাল্লার বাস বন্ধ থাকায় অতিরিক্ত ভাড়া দিয়েও অনেকে যাচ্ছেন প্রাইভেটকার, মাইক্রোবাস ও সিএনজিতে।

মঙ্গলবার (১৩ এপ্রিল) রাজধানীর গাবতলী বাস কাউন্টার এলাকায় সকাল থেকেই শত শত যাত্রী দেশের বিভিন্ন স্থানে যাওয়ার জন্য অপেক্ষা করছেন। সরকারি নির্দেশনা অমান্য করে ব্যক্তিগত পরিবহনে এখন যাত্রী পরিবহন চলছে। এই এলাকায় পুলিশ সদস্যরা এই অনিয়ম ঠেকাতে কঠোর অবস্থানে রয়েছেন।

গাবতলী বাস টার্মিনাল এলাকা থেকে কোন ব্যক্তিগত পরিবহনে যাত্রী নিতে দিচ্ছে না আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী। আর তাই এসব ব্যক্তিগত পরিবহনের চালকরা পুলিশের চোখ ফাঁকি দিয়ে আমিনবাজার ব্রিজ পার হয়ে যাত্রী তুলছেন। গাবতলী ব্রিজ পর্যন্ত পুলিশের কঠোর অবস্থান লক্ষ্য করা গেছে।

আমিনবাজার ব্রিজের ওপারে দাঁড়িয়ে ছিলেন প্রাইভেটকার চালক খসরু। তিনি বলেন, করোনার কারণে দূরপাল্লার বাস বন্ধ থাকায় আমরা ঢাকা থেকে পাটুরিয়া পর্যন্ত যাত্রী আনা-নেওয়া করছি। কিন্তু পুলিশ গাবতলী এলাকায় খুব ঝামেলা করছে। মামলা দিচ্ছে। তাই আমিনবাজার ব্রিজের এপার থেকে যাত্রী নিচ্ছি। লকডাউনে সব বন্ধ থাকবে। কীভাবে সংসার চালাবো সেটাই ভেবে পাচ্ছি না। তাই লকডাউনের আগে একটু ইনকাম করে নিচ্ছি।

তিনি জানালেন, গত কয়েকদিনে বেশ আয়-রোজগার হয়েছে। আসলে অবস্থা এমন হয়েছে যে সরকারের সব নির্দেশনা মেনে চললে, তারা খেতে পারবেন না। তাই কিছু নির্দেশনা না চাইলেও ভাঙতে হচ্ছে। পুলিশের চোখ ফাঁকি দিয়ে আমিনবাজার ব্রিজের এপারে এসে তিনি দাঁড়িয়েছেন যাত্রী নেওয়ার জন্য।

ট্রাফিক পুলিশের সার্জেন্ট মো. হাসনাত বলেন, সকাল থেকে নিষেধাজ্ঞা অমান্য করা গাড়িগুলোকে মামলা দিচ্ছি। এখন পর্যন্ত আটজনকে যাত্রী পরিবহনের দায়ে মামলা দিয়েছি। আমরা প্রশাসনের পক্ষ থেকে সর্বাত্মক চেষ্টা করছি। তারপরও কিছু কিছু মানুষ বের হয়ে যাচ্ছে।

ফেসবুকে অমাদের ফলো করুন