বুধবার ২০ অক্টোবর ২০২১ || কার্তিক ৫ ১৪২৮ || ১৩ রবিউল আউয়াল ১৪৪৩

Logo
Logo

সংক্রমণ রোধে টিকা-স্বাস্থ্যবিধির বিকল্প নেই

নিজস্ব প্রতিবেদক

আপডেট: 11:31 PM, সোমবার, ১২ এপ্রিল, ২০২১

সংক্রমণ রোধে টিকা-স্বাস্থ্যবিধির বিকল্প নেই

প্রাণঘাতী করোনাভাইরাসের সংক্রমণের ঊর্ধ্বগতি রোধসহ করোনা মোকাবিলায় টিকা নেওয়া ও মাস্ক পরাসহ সকল ধরনের স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলার কোনো বিকল্প নেই বলে জানিয়েছেন বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ের (বিএসএমএমইউ) উপাচার্য অধ্যাপক ডা. মো. শারফুদ্দিন আহমেদ।

সোমবার (১২ এপ্রিল) বিকেলে করোনা পরিস্থিতিতে সাধারণ মানুষের করণীয় এবং অত্র বিশ্ববিদ্যালয়ের পক্ষ থেকে নেওয়া বিভিন্ন কার্যক্রম নিয়ে আয়োজিত এক প্রেস ব্রিফিংয় তিনি এসব কথা বলেন।

তিনি বলেন, বর্তমানে মানুষ আফ্রিকান ভ্যারিয়েন্ট-এ বেশি আক্রান্ত হচ্ছেন। এটা এক জন থেকে তিন জন, তিন জন থেকে পাঁচ জন, পাঁচ জন থেকে ২৫ জন এভাবে ছড়িয়ে পড়ছে। এ অবস্থায় আমাদের আরও সচেতন হতে হবে।

শারফুদ্দিন আহমেদ বলেন, দিনে অন্তত তিন বার গরম পানির ভাপ নিতে হবে। নিয়মিত ব্যায়াম করতে হবে। এতে রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বৃদ্ধি পাবে ও ইমিউনিটি বজায় থাকবে। ভিটামিন সি ও ডি খেতে হবে। সবুজ ও হলুদ ফল খেতে হবে। রুমে এসির ব্যবহার না করাই ভালো এবং রুমের জানালা খোলা রাখতে হবে। লোক সমাগম করা যাবে না। অনেক লোক সমাগম হয় আপাতত এরকম অনুষ্ঠান বন্ধ রাখতে হবে।

অহেতুক সরকারের সমালোচনা না করে সকলের সহযোগিতা কামনা করে উপাচার্য বলেন, করোনাভাইরাসে এ পর্যন্ত সাত হাজার চিকিৎসক আক্রান্ত হয়েছেন এবং ১৪০ জন চিকিৎসক মারা গেছেন। তারপরও দেশের চিকিৎসক সমাজ রোগীদের চিকিৎসা সেবা প্রদান অব্যাহত রেখেছেন।

তিনি আরও বলেন, বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ের বর্তমান প্রশাসন করোনা মোকাবিলাকে প্রধান চ্যালেঞ্জ হিসেবে গ্রহণ করেছে। ইতোমধ্যে কেবিন ব্লকে কেবিনের শয্যা সংখ্যা ২০০ তে উন্নীত করা হয়েছে। আইসিইউ বেড বাড়িয়ে ২০টিতে উন্নীত করা হয়েছে। বেতার ভবনে ১০০ শয্যার নতুন করোনা ইউনিট চালু করা হয়েছে। এরমধ্যে বর্তমানে ৫০টি শয্যা চালু রয়েছে এবং আরও ৫০টি শয্যা চালুর কার্যক্রম চলমান রয়েছে। ইতোমধ্যে বেতার ভবনে রোগী ভর্তি কার্যক্রম শুরু হয়েছে। কেবিন ব্লকে আরও ১০টি আইসিইউ বেড বাড়ানোর কার্যক্রম চলছে।

টিকা প্রয়োগের সর্বশেষ অবস্থা জানিয়ে তিনি বলেন, বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ের কনভেনশন সেন্টারে আজ (সোমবার) মোট এক হাজার ৫৮৭ জন টিকা নিয়েছেন। এর মধ্যে দ্বিতীয় ডোজের টিকা নিয়েছেন এক হাজার ৩২৬ জন এবং প্রথম ডোজের টিকা নিয়েছেন ২৬১ জন। এ পর্যন্ত প্রথম ডোজের টিকা নিয়েছেন মোট ৫২ হাজার ৭০৬ জন এবং দ্বিতীয় ডোজের টিকা নিয়েছেন পাঁচ হাজার ৮৭২ জন।

ফেসবুকে অমাদের ফলো করুন