রবিবার ১৭ অক্টোবর ২০২১ || কার্তিক ১ ১৪২৮ || ১০ রবিউল আউয়াল ১৪৪৩

Logo
Logo

করোনায় পোশাক শ্রমিকদের স্বাস্থ্যসেবা খুবই অপ্রতুল

নিজস্ব প্রতিবেদক

আপডেট: 12:46 PM, সোমবার, ১২ এপ্রিল, ২০২১

করোনায় পোশাক শ্রমিকদের স্বাস্থ্যসেবা খুবই অপ্রতুল

করোনাভাইরাস মোকাবিলায় তৈরি পোশাক খাতের শ্রমিকদের স্বাস্থ্য সেবার প্রস্তুতি খুবই অপ্রতুল বলে দাবি করেছে বাংলাদেশ গার্মেন্ট শ্রমিক সংহতি। সোমবার (১২ এপ্রিল) ‘কোভিড অতিমারির দ্বিতীয় ঢেউ : কীভাবে সামলাব?’ শীর্ষক বেসরকারি গবেষণা সংস্থা সেন্টার ফর পলিসি ডায়ালগের (সিপিডি) আয়োজিত ওয়েবিনারে সংগঠনটির সমন্বয়ক তাসলিমা আখতার এমন দাবি করে।

তাসলিমা আখতার জানান, পোশাক শ্রমিকদের সংখ্যা ৪০ লাখ। পরিবারসহ এই সংখ্যা কোটিতে ছাড়িয়ে যাবে। এসব শ্রমিকদের মধ্যে মাত্র ৫ হাজার শ্রমিকদের কোভিড টেস্ট করা হয়েছে। যা খুবই অপ্রতুল।

তিনি আরও বলেন, এবারের প্রস্তুতি সম্পর্কে আমাদের জানা নেই। এ বিষয়ে কোনো নিশ্চয়তাও পাচ্ছি না। বলা হচ্ছে মাত্র ৭০৯ জন শ্রমিকের মধ্যে করোনাভাইরাস পাওয়া গেছে।

তিনি বলেন, অগ্রাধিকার ভিত্তিতে শ্রমিকদের টেস্টের ব্যবস্থা করা দরকার। সাভার ও আশুলিয়ার দিকে তাকান, সেখানেই কতজনের সুযোগ আছে করোনা টেস্ট করানোর। আমরা শুনতে পাচ্ছি করোনা উপসর্গ নিয়ে অনেক শ্রমিকই কাজে যাচ্ছেন। তাই আমাদের শ্রমিকদের স্বাস্থ্য সেবায় নজর দেওয়া উচিত। তাদের মৃত্যু হলে পোশাক মালিকদের কী অবস্থান আমরা জানি না। শ্রমিকরা বাঁচলে গার্মেন্টস শিল্প বাঁচবে। এটা মাথায় রাখা উচিত মালিক ও সরকারকে।

তাসলিমা বলেন, করোনা ও লকডাউন শ্রমিকদের কাছে আতঙ্কের নাম। মধ্যবিত্তরা যেমন স্বাস্থ্য নিয়ে ভাবতে পারেন, শ্রমিকদের সেটা ভাবার সুযোগ নেই। তাদের একটাই চিন্তা, জীবিকা। মালিকপক্ষ থেকে বলা হয়েছে অর্থনীতি বাঁচাতে হলে কারখানা খোলা রাখতে হবে। সবকিছু মিলিয়ে আমরা আতঙ্কে আছি।

জরুরি তহবিল প্রসঙ্গে তিনি বলেন, এটি গঠন হয়েছে কি-না আমাদের জানা নেই। আমাদের পোশাক শ্রমিকদেরও প্রথম সারির যোদ্ধা হিসেবে স্বীকৃতি দেওয়া উচিত। লকডাউনে জরুরি সেবার মতো শ্রমিকদেরও কাজ করতে হয়।

ফেসবুকে অমাদের ফলো করুন